১৩ বছর বয়সে দেশ ছেড়ে আমেরিকা পাড়ি দিয়েছিলেন! ফিরলেন দীর্ঘ ২৪ বছর পরে

0
97
ছবি: সংগৃহীত
ছবি: সংগৃহীত

সেই ১৩ বছর বয়সে দেশ ছেড়ে আমেরিকা পাড়ি দিয়েছিলেন ১৫ জানুয়ারি দেশে ফিরলেন দীর্ঘ ২৪ বছর পরে।

গ্রীন কার্ড পেয়ে তবেই রুহুল আমিন এসেছেন মাকে দেখতে আর বিয়ে করতে। বাবা, ২ ছোট ভাই মিলে বিমানবন্দর থেকে রওয়ানা ও দিয়েছিলেন সিলেটের বিয়ানীবাজারে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে। দুচোখে কতো আশা, কতো জনের সাথে দেখা হবে, কতো আত্মীয়স্বজন বাড়িতে আসবে। হৈ হুল্লোড় উৎসব হবে। বাল্যকালের বন্ধুদের সাথে আড্ডা হবে। যখন তিনি আমেরিকা গিয়েছিলেন তখন সংসারে অভাব ছিলো। সেই সংসারের অভাব ঘুচেছে।

ঐ দিকে অপেক্ষায় ছিলেন মা, বোন আর ছোট ভাইয়ের স্ত্রীরা । দুই হাত ভরে রেঁধেছেন। মন মিটিয়ে খাওয়াবেন।
মা অপেক্ষায় থাকতে থাকতে দোয়া করছিলেন। সেই যে গেল, দুই যুগ পরে ফিরছে ছেলেটা।
মা গত কদিন ধরে বলেছেন ওর এটা ওটা পছন্দ। নিজের বাপের বাড়িতে যাবেন ছেলেকে নিয়ে। ওর মামিরা দাওয়াত দিয়ে রেখেছে। এবার ছেলের বিয়েও হবে। কতো উৎসব।

কিন্তু, রুহুল আমিনের দেখা হলো না মায়ের সঙ্গে। বিমানবন্দর থেকে মাইক্রোবাসে বাড়ি যাওয়ার পথে
রাতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার শশইয়ে পাথরবাহী একটি ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই নিহত হন রুহুল আমিন।

এলেন বটে গ্রামের বাড়িতে তবে তা লাশ হয়ে। মা ছেলের লাশ দেখলেন ! মৃত্যু জনপদের এই দেশে আর কতো লাশ দেখার বাকি?