Saturday, May 28, 2022
Homeঅনলাইন ইনকামঘরে বসে প্রতি মাসে ১ থেকে ২ লক্ষ টাকা ইনকাম করুন -...

ঘরে বসে প্রতি মাসে ১ থেকে ২ লক্ষ টাকা ইনকাম করুন – make money online

আজ সময়ের সাথে সাথে অর্থ উপার্জনেরও নানা উপায় সামনে এসেছে। আগে আমাদেরকে রোজগারের জন্য প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত কাজ করতে হত। কিন্তু এখন সময় বদলেছে,আপনি ধারাবাহিক এবং একঘেয়ে কাজের বাইরে গিয়ে, বাড়িতে বসেই লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করতে পারেন।বর্তমানে ডিজিটাল মার্কেটিং আপনার জন্য সেই আলাদিনের আশ্চর্য প্রদীপ নিয়ে হাজির হয়েছে।



ঘরে বসেই আপনি প্রচুর রোজগার করতে পারেন।তবে ঘরে বসে কাজ মানে যে আপনাকে কোনও পরিশ্রম করতে হবে না,তা নয়।আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপের মাধ্যমে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাজ করে আপনার এই ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে কিভাবে টাকা উপার্জন করা যায় তা জানার আগে আপনাকে জানতে হবে ডিজিটাল মার্কেটিং কি?



ডিজিটাল মার্কেটিং কি?(What is Digital Marketing?)

আপনি যদি মার্কেটিং করার জন্য কোনও ইলেকট্রনিক ডিভাইস বা ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন তবে সেটি হোল ডিজিটাল মার্কেটিং।এই মার্কেটিং এ বিভিন্ন ব্যাবসায়িক চ্যানেল যেমন সার্চ ইঞ্জিন, সোশ্যাল  মিডিয়া, ইমেল,ওয়েবসাইট ইত্যাদির মাধ্যমে গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।




আগে মার্কেটিং বলতে বোঝাতো আপনাকে আপনার কাস্টমারকে সঠিক সময়ে ,সঠিক জায়গায় টার্গেট করতে হবে।কিন্তু আজকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর যুগে আপনাকে বিভিন্ন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে আপনার কাস্টমারদেরকে পরিষেবা দিতে হবে,যেখানে তাদের উপস্থিতি আছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে কিভাবে উপার্জন করা যায় (How to Earn Money by Different Types of Digital Marketing or Online Business)



এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে আপনি কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন? তাই আমরা এখানে আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে জানাবো,যা আপনার ব্যবসাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

অনলাইনে একটি ই-বুক লিখুন এবং বিক্রি করুন  (Write and Sell an E-Book Online)

আপনার যদি ভালো লেখার হাত থাকে এবং আপনি একটি বই লিখতে সামর্থ্য হন তাহলে এই ই-বুকই হল আপনার জন্য একটি খুব ভালো প্লাটফর্ম।লেখার সাথে সাথে আপনি অনেক অর্থ উপার্জনও করতে পারবেন।এক্ষেত্রে আপনার কাস্টমার পেতে কিছুটা দেরি হতে পারে,তবে একবার কাস্টমার পেয়ে গেলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি সাফল্য পেতে শুরু করবেন।এই ধরনের বই গুলো থেকে মানুষ টেকনিক্যাল বিভিন্ন আইডিয়া পেতে পারেন,যার জন্য বাজারে এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে।



একটি অ্যাপ তৈরি করুন এবং ইন্টারনেট মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করুন(Create an App and Make Money with Internet Marketing)

যদি আপনার অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান থাকে,তবে আপনি একাজ করতে পারেন।আপনি একটি ভাল অ্যাপ তৈরি করে মোবাইল ব্যবহার করে শত শত গ্রাহককে আকৃষ্ট করতে পারেন এবং তা থেকে প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারেন।যদিও একটি অ্যাপ তৈরি করতে যথেষ্ট অর্থ ও সময়ের প্রয়োজন।


যদি আপনার এই বিষয়ে সম্পূর্ণ জ্ঞান না থাকে, তাহলে আপনি এমন কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারেন যার অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা আছে।

ইউটিউবে ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করুন এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করুন(Create Video Tutorials on YouTube and use other Social Media Platforms)

যারা খুব সহজে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে রোজগার করতে চান তাদের জন্য এটি সবচেয়ে সহজ উপায়।যদিও এটি সময়সাপেক্ষ ,এতে আপনি রাতারাতি ধনী হতে পারবেন না।তবে আপনি যদি ভালো এবং আকর্ষণীয় ভিডিও তৈরি করেন এবং আপনার চ্যানেলে শেয়ার করেন, তাহলে আপনি ইউটিউবে ভিডিও তৈরি করেও লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন।



ব্লগ তৈরি করুন(Blogging)

ব্লগিং হোল ডিজিটাল মার্কেটিং এর যুগে অর্থ উপার্জনের সবথেকে ভালো উপায়।আপনি যদি আকর্ষণীয় ব্লগ তৈরি করতে পারেন তবে আপনি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা পর্যন্ত রোজগার করতে পারবেন।তবে এর জন্য শুরুতে কঠোর পরিশ্রম এবং অনেক ধৈর্যের প্রয়োজন, আপনাকে আপনার বিষয় নির্ধারণ করতে হবে এবং এটি সম্পর্কে প্রতিদিন একটি করে ব্লগ লিখতে হবে। অনলাইন রিডার পেতে আপনার হয়তো কয়েক মাস সময় লাগতে পারে, কিন্তু একবার আপনি সফল হলে আপনার সাফল্য আপনাকে আরও কাজ করতে অনুপ্রাণিত করবে।

ইন্টারনেটে আপনার ছবি বিক্রি করে (By Selling Your Photograph on Internet)




আপনার যদি ফটোগ্রাফির শখ থাকে এবং আপনার কাছে ভালো ভালো ফটো থাকে,তাহলে আপনার জন্যও ইন্টারনেট মার্কেটিংয়ে অনেক সুযোগ রয়েছে।এছাড়াও আপনি ইন্টারনেটে আপনার ছবি বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।ইন্টারনেটে এরকম অনেক সাইট আছে, যেগুলো আপনার কাছ থেকে আপনার ছবি কিনে নেবে এবং বিনিময়ে আপনাকে টাকা দেবে।এর জন্য আপনার কোনো বাড়তি পরিশ্রমের প্রয়োজন নেই, তবে আপনার তোলা ছবিগুলো আকর্ষণীয় ও ভিন্নধর্মী হতে হবে।

এস ই ও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান) [Search Engine Optimization(SEO)]




এস ই ও অর্থাৎ সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান হল ইন্টারনেটে অর্থ উপার্জনের অন্যতম একটি সেরা উপায়।এস ই ও র মূল উদ্দেশ্য হোল সার্চ ইঞ্জিনের সার্চ ফলাফলে আপনার সাইটের দৃশ্যমানতা বৃদ্ধি করা।প্রতিটি সার্চ ইঞ্জিন কিছু নির্দিষ্ট “কী ওয়ার্ড”এবং বাক্যাংশের উপর ভিত্তি করে উত্তর দেয় এবং যে সাইটটি সবচেয়ে বেশি তথ্য সম্পর্কিত ফলাফল দেয়, সেটি সার্চের শীর্ষে উঠে আসে।সুতরাং একজন এসইও প্রফেশনাল বিভিন্ন কী ওয়ার্ড এবং বাক্যাংশের মধ্যে ব্যাল্যান্সের মাধ্যমে তার সাইটটিকে সার্চ ইঞ্জিনে নিয়ে আসার চেষ্টা করেন।আপনি SEO এর মাধ্যমে লিঙ্ক তৈরি করে বা কনটেন্ট লিখে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

ওয়েবসাইট ডিজাইনিং(Website Designing)



ওয়েবসাইট ডিজাইনিং এর ব্যবসা শুরু করতে হোলে এই ফিল্ডে আপনার টেকনিক্যাল জ্ঞান থাকা জরুরী।আপনি যদি ওয়েবসাইট তৈরি করতে জানেন এবং তা ভালোভাবে চালানোর জন্য আপনার যথেষ্ট জ্ঞান থাকে তবে আপনার জন্য এটি একটি উপযুক্ত ব্যবসা।

ওয়েবসাইট ডিজাইনিং এর মধ্যে রয়েছে পরিকল্পনা, স্ট্রাকচারিং, সৃজনশীলতা এবং আপডেট করার যাবতীয় প্রক্রিয়া, অর্থাৎ ডিজাইনারকে লেআউট, স্প্ল্যাশ কালার, ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত ইমেজ, ইউজার ইন্টারফেস তৈরি ইত্যাদি বিষয় মাথায় রাখতে হবে।মার্কেটে টিকে থাকার জন্য নিয়মিত আপনার ওয়েবসাইট আপডেট করতে হবে।আজকাল এই প্রযুক্তির যুগে, যেকোনো ব্যক্তি ঘরে বসেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে বা অন্য গ্রাহকদের জন্য মেকওভার করে অর্থ উপার্জন করতে পারে।



অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং(Affiliate Marketing)

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হোল ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রাচীনতম পদ্ধতি।এক্ষেত্রে আপনি অন্যের ব্যবসার প্রচারের সাহায্যের সাথে সাথে নিজেও যথেষ্ট উপার্জন করতে পারেন।যেমন ধরুন আপনি আপনার কোনও বন্ধুকে নিদিষ্ট কোনও সাইট থেকে প্রোডাক্ট কিনতে বললেন এবং যদি তিনি সেই সাইট থেকে কোনো প্রোডাক্ট কেনেন, তাহলে আপনি বিনিময়ে কমিশন পাবেন।

অনেক অনলাইন ই-কমার্স কোম্পানি সফল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং -এ অর্থ উপার্জনের একটি উদাহরণ।একে রেফারেল মার্কেটিংও বলা হয়।এক্ষেত্রে আপনি আপনার রেফারেল লিঙ্কের সাথে একটি কোম্পানিকে সংযুক্ত করতে পারেন এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এইভাবে আপনি আপনার লিঙ্কের মাধ্যমে বিক্রি হওয়া প্রতিটি পণ্য থেকে কমিশনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।



সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (Social Media Marketing)

আপনি শুনলে অবাক হতেই পারেন যে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন মার্কেটিং এর মাধ্যমেও অর্থ উপার্জন করা যায়।এটি এক ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং, যা ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে করা হয়।

বেশিরভাগ সোশ্যাল মিডিয়া নেটওয়ার্কেরই নিজস্ব ডেটা আন্যালেটিক টুল আছে, যা সোশ্যাল মিডিয়াতে মার্কেটিং এবং বিজ্ঞাপনে সহায়তা করে।



মোবাইল মার্কেটিং(Mobile Marketing)

মোবাইল মার্কেটিং হল ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি নতুন পদ্ধতি। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের এই পদ্ধতিটি দিন দিন খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। মোবাইল মার্কেটিং এর পদ্ধতিগুলো নিচে দেওয়া হলো

তো,আমি তিতাস মাহমুদ আজ এখানেই বিদায় নিচ্ছি।শীঘ্রই দেখা হবে আবারও। ততক্ষণ ভালো থাকবেন।আর হ্যাঁ এতক্ষণ সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।



RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments