শহর ছেড়ে গ্রামে থাকার ইচ্ছা প্রকাশ (রিফার পৃথিবী)

4589
58475

রিফার পৃথিবী
ঢাকা শহরের রিফার বাড়ি। তার বয়স ১১ বছর। তার বাবার নাম রফিকুল এবং মায়ের নাম মাজেদা। তার বাবা একজন শিল্পপতি এবং তার মা একজন ডাক্তার। তারা দুজন প্রায় সবসময়ই প্রায় সবসময়ই বাড়ির বাইরে থাকেন। বাড়িতে একা একা থাকে রিফা। তার একা একা থাকতে ভালো লাগেনা। এজন্য তার খেলার সাথী হিসেবে তার বাবা একটা যন্ত্রচালিত পুতুল এনে দিল। কিন্তু এতেও তাঁর ভালো লাগেনা। সে চাই গ্রামের পরিবেশ, গ্রামের খোলা আকাশ, গ্রামের সবুজ ধান ক্ষেত ইত্যাদি। তার পছন্দ বৃষ্টিতে ভিজে বেড়ানো, নদীতে মাছ ধরা। তার এই বর্তমান যুগ ভালো লাগে না, ভালো লাগে না শহরের প্রচুর গাড়ির হর্ন, বহুতলা ভবন। তার পছন্দ ওই গ্রামের কুঁড়েঘর, গ্রামের নবান্ন, পিঠা পুলির উৎসব। হঠাৎ সে একদিন তার মাকে বলল মা আমরা যদি এই ঢাকা শহরে না থাকতাম এই আধুনিক যুগ এর সাথে তাল না মিলিয়ে গ্রামে বসবাস করতাম তাহলে কত ভালো হত না? আমি সবুজ ধানক্ষেত দেখতে পেতাম, খোলা আকাশের নিচে ঘুরতাম, বৃষ্টিতে ভিজতাম, তাহলে খুব মজা হতো তাই না মা? তার মা বলল না। আধুনিক যুগে আধুনিক যুগের মতই চলতে হবে। ওই গ্রামের গেও ভূত দের মত চলা হবে না না। এই কথা শুনে রিফার খুব মন খারাপ হয়ে গেল। সে মনে মনে ভাবতে লাগলো গ্রামের মানুষ কী অশিক্ষিত হয়? গ্রাম থেকে কি পড়াশোনা হয় না? গ্রামের মানুষ কি ডাক্তার হয় না? আর মনে মনে কাঁদতে লাগলো আর বলতে লাগলো আমি যদি আধুনিক যুগে জন্মগ্রহণ না করতাম তাহলে খুব ভালো হতো।

লেখক: বিপ্লব হসেন

জেলা: মেহেরপুর

গ্রাম: আশা তুলি